০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে ভেসে আসছে লাখ লাখ জেলিফিশ

পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সৈকতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে অসংখ্য জেলিফিশ ভেসে আসছে। এসব জেলিফিশ শরীরে লাগলেই একদিকে যেমন চুলকানি হচ্ছে, তেমনি পঁচে গিয়ে সৈকত এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

অন্যদিকে, সমুদ্রেও অস্বাভাবিক সংখ্যা জেলিফিশ ভেসে ওঠায় মাছ ধরার জাল ফেলতে পারছেন না বলে অভিযোগ করছেন স্থানীয় জেলেরা।

স্থানীয় জেলে রহমত মিয়া বলেন,‘লাখ লাখ জেলিফিশ। এত জেলিফিশ আমরা আগে কখনো দেখিন।’

জেলা মৎস্য কর্মকর্তারাও অস্বাভাবিক হারে জেলিফিশ ভেসে আসার কথা স্বীকার করছেন।

কিন্তু কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে হঠাৎ এত জেলিফিশ ভেসে আসার কারণ কী? পরিবেশগত দিকে থেকে এটি কি খারাপ কিছুর ইঙ্গিত বহন করছে।

কবে থেকে ভেসে আসছে?
গত ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে থেকে সমুদ্র সৈকতে ঝাঁকে ঝাঁকে জেলিফিশ ভেসে আসছে বলে জানিয়েছেন কুয়াকাটার স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয় বাসিন্দা কে এম বাচ্চু বলেন,‘এর আগেও কমবেশি ভেসে আসতো। তবে গত কয়েক সপ্তাহে এর সংখ্যা মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে গেছে।’

সৈকতের বালিতে আটকে থাকা এসব জেলিফিশ মরে-পঁচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

বাচ্চু বলেন,‘পঁচা গন্ধে সৈকতে হাঁটাচলা পর্যন্ত করা যাচ্ছে না। তাছাড়া এটি গায়ের নিচে পড়লে বা কেউ এটি ধরলে চুলকানি হচ্ছে।;

সে কারণে স্থানীয়দের কেউ কেউ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে মৃত জেলিফিশ গুলোকে বালির নিচে পুঁতে দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

সৈকতে ভেসে আসা জেলিফিশ গুলোর আকার বেশ বড় এবং একেকটির ওজন কয়েক কেজি বলে জানা যাচ্ছে।

বাচ্চু বলেন,‘হাফ কেজি থেকে শুরু করে তিন-চার কেজি ওজনেরও জেলিফিশ ভেসে আসছে।’

কুয়াকাটার আন্ধারমানিক নদের মোহনা ও এর আশপাশের প্রায় ১৮ কিলোমিটার উপকূলীয় এলাকাজুড়ে জেলিফিশ বেশি ভেসে আসছে বলে জানা যাচ্ছে।

এছাড়া সমুদ্রেও এটি ঝাঁকে ঝাঁকে ভেসে উঠছে বলে জানাচ্ছেন স্থানীয় জেলেরা।

জেলে রহমত মিয়া বলেন,‘জাল ফেললেই দেখা যাচ্ছে তাতে শত শত জেলিফিশ আটকাচ্ছে। এগুলো জাল নষ্ট করে দিচ্ছে।’

মূলত: জেলিফিশ আটকে জালের ওজন বেড়ে যাওয়ায় অনেক সময় সেটি টেনে নৌকায় তুলতে পারেন না জেলেরা।

ফলে তারা জাল কেটে ফেলতে বাধ্য হন।

এই সমস্যার কারণে জেলেদের অনেকেই সমুদ্রে জাল ফেলা বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

রহমত মিয়া বলেন, ‘হাজার হাজার টাকার জাল যদি এর কারণে নষ্ট হয়, তাহলে চলবো কী করে? এর একটা সমাধান আমরা চাই।’

জেলিফিস আসলে কী?
জেলিফিশ এক ধরনের বহুকোষী জলজ প্রাণি।

নামের সাথে ‘ফিশ’ যুক্ত থাকলেও শরীরে মেরুদণ্ড বা হাড় না থাকায় একে ঠিক মাছ হিসাবে গণ্য করেন না বিজ্ঞানীরা।

বিজ্ঞানীদের ধারণা, ৫০০ কোটি বছর আগে জেলিফিশের জন্ম হয়েছিল, যা ডাইনোসর যুগেরও আগের ঘটনা।

জেলিফিশের মস্তিষ্ক, এমনকি হৃদপিণ্ডও নেই। তবে এদের শরীর জুড়ে অসংখ্য স্নায়ু ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে।

সেগুলো ব্যবহার করেই এটা বিশেষ প্রক্রিয়ায় শ্বাস নিয়ে থাকে।

জেলিফিশের শরীরের প্রায় ৯৮ শতাংশই পানি দিয়ে গঠিত। মাছের মতো আঁশ, ফুলকা বা পাখনাও থাকে না।

এর পরিবর্তে এদের শরীরে প্রায় সম্পূর্ণরূপে স্বচ্ছ ছাতার মতো দেখতে গোলাকৃতির একটি অংশ থাকে। এটি ব্যবহার করেই জেলিফিশ পানিতে ভেসে বেড়ায়।

এরা মূলত: লবণাক্ত পানিতে বাস করে। সমুদ্রের ১২ হাজার ফুট গভীরেও এদের খুঁজে পাওয়া যায় বলে জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।

আকৃতিতে সাত ফুট থেকে শুরু করে ১২০ ফুট পর্যন্ত বড় হতে পারে। এক্ষেত্রে একেকটা জেলিফিশের ওজন আট থেকে ১০ কেজি পর্যন্ত হতে পারে।

জেলিফিশ সাধারণত মাছের ডিম, রেণুপোনা, প্লাঙ্কটন এবং অন্যান্য ক্ষুদ্র জলজ প্রাণি খেয়ে বেঁচে থাকে।

যৌন এবং অযৌন উভয় পদ্ধতিতেই এরা বংশবিস্তার করতে পারে।

পটুয়াখালীর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন,‘প্রজনন ছাড়াও একটি জেলিফিশের শরীরের অঙ্গ থেকে নতুন জেলিফিশ জন্ম নিতে পারে।’

গবেষকরা বলছেন, পৃথিবীতে প্রায় ২ হাজার প্রজাতির জেলিফিশ রয়েছে। তবে বাংলাদেশের সমুদ্রে তিন থেকে চার প্রজাতির জেলিফিশ দেখা যায়।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়‘সাদা জেলি ফিশ’।

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে মূলত: এই প্রজাতির জেলিফিশ ভেসে আসছে বলেই জানিয়েছেন কামরুল ইসলাম।

কক্সবাজার সমুদ্র উপকূলেও জেলিফিশ দেখা যায়। স্থানীয়ভাবে একে ডাকা হয় ‘নুইন্না’। কারণ এর শরীরের বেশিরভাগ অংশ লবণাক্ত পানি দিয়ে তৈরি।

জেলিফিশ বেশি পাওয়া যায় বলে কক্সবাজারের একটি এলাকার নামই দেয়া হয়েছে‘নুইন্নাছড়া’।

প্রজাতিভেদে জেলিফিশ কয়েক মাস থেকে কয়েক বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।

চীন, জাপান, কোরিয়াসহ বেশ কিছু দেশে জেলিফিশের কয়েকটি প্রজাতি খাওয়া হয়। তবে বাংলাদেশী সাধারণত কাউকে এটি খেতে দেখা যায় না।

তবে এটি বিদেশে রফতানি করা যায় কী-না, সেটি নিয়ে সম্প্রতি গবেষকরা শুরু করেছেন বাংলাদেশের বিজ্ঞানীরা।

হঠাৎ এত আসার কারণ কী?
গবেষকরা বলছেন, শীতের শেষে তাপমাত্রা বৃদ্ধির সাথে সাথে সমুদ্রের পানিতে অক্সিজেনের পরিমাণ খানিকটা বেড়ে যায়।

বিশেষ করে ফেব্রুয়ারি থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত পানিতে অক্সিজেনের পরিমাণ খুব ভালো থাকে, যা জেলিফিশের বংশবিস্তারের জন্য উপযুক্ত সময়।

এটিই মূলত: জেলিফিশের প্রজনন মৌসুম বলে জানান পটুয়াখালীর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম।

সমুদ্রের তাপমাত্রা ও লবণাক্ততা অনুকূলে থাকায় এই সময়ে জেলিফিশের বংশবিস্তার বেড়ে যায়।

মাছের ডিম, প্লাঙ্কটন ও অন্যান্য ক্ষুদ্র জলজ প্রাণি খেয়ে এরা দ্রুতই বেড়ে ওঠে।

কামরুল ইসলাম বলেন, যেহেতু এরা স্রোতের মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করতে পারে না, তাই স্রোত বা জোয়ারের পানিতে ভেসে প্রায়ই তীরে চলে আসে এবং বালিতে আটকে যায়।’

তিনি আরো বলেন, প্রজনন মৌসুম হওয়ায় প্রতিবছর ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময় থেকে উপকূলীয় এলাকায় জেলিফিশের আধিক্য বেশ বেড়ে যায়।

তবে এবার যে হারে জেলিফিশ ভেসে আসছে বা জেলেদের জালে আটকাচ্ছে, সেটি বেশ চিন্তায় ফেলে দিয়েছে গবেষকদের।

তিনি বলেন,‘এবারের ঘটনাটি কিছুটা অস্বাভাবিক বলেই মনে হচ্ছে।

মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন,‘অবস্থা দেখে আমরা ধারণা করছি যে, সামুদ্রিক ইকোসিস্টেমে ভারসাম্যহীনতা দেখা দিয়েছে।’

কচ্ছোপ এবং সামুদ্রিক অনেক মাছ ও প্রাণী জেলিফিশকে খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে থাকে। গবেষকদের ধারণা এগুলোর সংখ্যা কমে যাওয়ায় সমুদ্রে বাস্তুসংস্থানে এই ভারসাম্যহীনতা দেখা দিয়েছে।

ওয়ার্ল্ডফিশের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইকোফিশের গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন,‘ওভার ফিশিং (অতিমাত্রায় মাছ ধরা) এর একটি কারণ হতে পারে। এছাড়া কচ্ছপের মতো যেসব প্রাণি জেলিফিশ খায়, সেগুলোও হয়তো কমে গেছে।’

সমুদ্রে কচ্ছপ কমছে
গবেষকরা বলছেন, সমুদ্রে জেলিফিশের প্রধান খাদক হচ্ছে কচ্ছোপ।

সমুদ্রে জেলিফিশের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে এরাই এতদিন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে বলেও জানাচ্ছেন তারা।

ইকোফিশের গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন,‘কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে সামুদ্রিক কচ্ছপের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমে গেছে।’

যদিও বাংলাদেশের সমুদ্রে কচ্ছপের সংখ্যার বিষয়ে নির্দিষ্ট কোনো তথ্য গবেষকদের কাছে নেই। তারপরও কচ্ছপের সহজলভ্যতা, আবাসভূমিসহ বেশ কয়েকটি বিষয়ের ওপর চালানো পর্যবেক্ষণ থেকেই তারা বুঝতে পারছেন যে কচ্ছপের সংখ্যা কমছে।

স্মৃতি বলেন, জেলিফিশের সংখ্যা এভাবে বেড়ে যাওয়াও একই ইঙ্গিত দিচ্ছে।

কচ্ছপ শিকার, এর ডিম সংগ্রহ, প্লাস্টিক দূষণ, জেলেদের অসচেতনতাসহ নানান কারণে সমুদ্রে কচ্ছপের সংখ্যা কমে যাচ্ছে বলে জানাচ্ছেন গবেষকরা।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক পরিবেশবাদী সংগঠন ক্লিন ওয়াটার বলছে, প্লাস্টিক দূষণের কারণে কমপক্ষে আড়াইশ প্রজাতির মাছ ও অন্যান্য সামুদ্রিক প্রাণি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

এর মধ্যে রয়েছে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সামুদ্রিক কচ্ছপ।

স্মৃতি বলেন, শুধুমাত্র কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতেই প্রতিবছর গড়ে অন্তত: ২০টি সামুদ্রিক কচ্ছপের মরদেহ ভেসে আসছে।’

মূলত: প্লাস্টিকের কণা খাওয়া এবং শরীরে আটকে যাওয়ার কারণে অনেক কচ্ছোপ মারা যাচ্ছে।

এছাড়া জেলেদের জালে বেঁধেও অনেক সময় কচ্ছপের মৃত্যু হচ্ছে বলে জানান গবেষকরা।

এর বাইরে কেউ কেউ কচ্ছপ শিকার করে খাচ্ছেন, এমনকি হত্যা করে গোশত ও খোলস বিক্রি করছেন। আবার কচ্ছপের ডিমও সংগ্রহ করে খাচ্ছেন অনেকে।

সব মিলিয়ে প্রাণিটি দিন দিন অস্তিত্বের সংকটে পড়ে যাচ্ছে বলে জানাচ্ছেন গবেষকরা।

পটুয়াখালী জেলার মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন,‘এগুলো অস্বীকার করার উপায় নেই। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাথে মিলে আমরা সেগুলো বন্ধ করা এবং মানুষকে সচেতন করার চেষ্টা করছি।’

জেলিফিস কী বিষাক্ত?
গবেষকরা বলছেন, হাজারো প্রজাতির জেলিফিশের মধ্যে কয়েকটি প্রজাতি রয়েছে, যেগুলো কিছুটা বিষাক্ত।

পটুয়াখালী জেলার মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন, ‘তবে সেই বিষ মৃত্য ঘটানোর মতো নয়।’

তিনি বলেন, বিষাক্ত জেলিফিশের সংস্পর্শে আসলে বড়জোর চুলকানি, লাল বার্ন হয়ে যাওয়া বা চোখে লাগলে ক্ষতি হতে পারে।’

তিনি বলছেন, বাংলাদেশে বিষাক্ত জেলিফিশ খুব একটা দেখা যায় না।

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে যে সাদা জেলিফিশ দেখা যাচ্ছে, সেটিও নির্বিষ।

কামরুল ইসলাম বলেন,‘তারপরও এটি শরীরে লাগলে কিছুটা চুলকানির মতো সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে।’

এতে ঘাবড়ানোর কিছু না থাকলেও জেলিফিশের সংস্পর্শে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

এই অবস্থা কতদিন থাকবে?
কুয়াকাটার সমুদ্র উপকূলে জেলিফিশকে কেন্দ্র করে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে, সেটি বেশিদিন স্থায়ী হবে না বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন,‘এটি একটি সাময়িক সমস্যা। সমুদ্রের পানিতে তাপমাত্রা কমে গেলেই এটি চলে যাবে।’

বৃষ্টিপাত হলেই সমুদ্রের তাপমাত্রা কমে আসবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে প্রাকৃতিক ভারসাম্য নিশ্চিত করতে না পারলে দীর্ঘমেয়াদে এটি বড় ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে বলেও মনে করছেন গবেষকদের কেউ কেউ।

ইকোফিশের গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন,‘সমুদ্রে এভাবে জেলিফিশ বাড়তে থাকলে তারা মাছের ডিম ও পোনা খেয়ে শেষ করে ফেলবে, যা জেলেসহ আমাদের সবার উপরে ভয়ঙ্কর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।’

কচ্ছপ ও সামুদ্রিক প্রাণির মধ্যে যেগুলো, জেলিফিশ খায়, সেগুলো সংরক্ষণ করা জরুরি বলে মনে করেন তিনি।

স্মৃতি বলেন, এগুলো রক্ষায় নজরদারি বাড়ানোর পাশাপাশি জেলেসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগুলোর বিষয়ে সচেতন করা উচিৎ।’

অতিরিক্ত মাছ ধরা ঠেকাতে প্রজনন মৌসুমে বাংলাদেশের নদী ও সাগরে একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য মাছ ধরা নিষেধ করে থাকে সরকার।

সেই ধারাবাহিকতায়, আগামী ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত সাগরে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

মৎস্য কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম বলেন,‘এই ধরনের কর্মসূচি অব্যাহত থাকলে সাগরের জীব বৈচিত্র্য বৃদ্ধি পাবে এবং প্রাকৃতিক ভারসাম্য ফিরে আসবে।’

সূত্র : বিবিসি

ট্যাগস :

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।

Google News

মামলার তথ্য গোপন করায় রাঙ্গাবালীর ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

উজিরপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিশ্ব মা দিবস পালিত

উজিরপুরে অস্ত্রোপচার করতে গিয়ে তরুণীর মৃত্যুর অভিযোগ

যানবাহন সংকটে অটোরিকশাই ভরসা বিএমপির

বরিশালে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে চলছে একতলা লঞ্চ, মানা হচ্ছে না শর্ত

বরিশালে গাঁজাসহ ২ কারবারি গ্রেপ্তার

তিন যুবককে বিবস্ত্র করে বিদ্যুতের শক, করা হয় ভিডিও

বরিশালে বিপুল পরিমানে কারেন্ট জাল সহ ৮ জেলে আটক

দাখিলে দেশসেরা ঝালকাঠি এনএস কামিল মাদরাসা

এসএসসিতে বরিশাল বোর্ডে শীর্ষে পিরোজপুর

আজ বিশ্ব মা দিবস

দুমকিতে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে চেয়ারম্যান প্রার্থীকে

গলাচিপায় সিএজি কার্যালয়ের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা

বরিশাল বোর্ডে এসএসসিতে কমেছে জিপিএ-৫, পাসের হার ৮৯.১৩ শতাংশ

এসএসসির ফল প্রকাশ

বরিশালে ছাত্রীদের যৌন হয়রানীর অভিযোগে শিক্ষক বরখাস্ত

বরিশাল সিটি করপোরেশন ওষুধে মশা নয়, মরে তেলাপোকা

দরজার হ্যাজবল ভেঙে টাকাসহ ৩৩ ভরি স্বর্ণালঙ্কার চুরি

এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ আগামীকাল

বাড়ি ছেড়ে যাওয়া স্ত্রীকে ২ পুরুষের সঙ্গে হাতেনাতে ধরলেন স্বামী, অতঃপর..!

পাচঁ বছর পরেও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিনের উপকার ভুলেনি বৃদ্ধ  মফিজ উদ্দিন

আমি নির্বাচিত হলে সদর উপজেলার দূর্নীতির ঘর তালাবদ্ধ করবো : এসএম জাকির হোসেন

বরিশালে কারেন্ট জাল ও মাছ সহ আটক ৫

বরিশাল-বাকেরগঞ্জে ৬৬ শতাংশ কেন্দ্র গুরুত্বপূর্ণ চিহ্নিত

নাজিরপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু

পাথরঘাটায় ১০ ঘণ্টা পর মিলল খালে নিখোঁজ শিশু মরদেহ

প্রয়োজনে শুক্রবারও ক্লাস নেওয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

বরিশালে বন্ধ রয়েছে বাস চলাচল

বরিশালে গণকের কথায় খলিলের মাংসের দোকানে তালা দিয়েছে মেম্বার 

বরিশালে ৭৯৭ কোটি টাকার প্রকল্প উদ্বোধন

ভোলায় সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে দলগত ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

উজিরপুরে জেলেদের মাঝে বৈধ জাল ও ছাগল বিতরণ করেন – রাশেদ খান মেনন

উজিরপুরে হিট স্ট্রোকে কৃষকের মৃত্যু

সকলের সমন্বয়ে বরিশাল সদর হবে আধুনিক উপজেলা: এসএম জাকির হোসেন

বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে প্রেমিকাকে বাসায় নিলেন প্রেমিক, অতঃপর…

বরিশালে বিএনপির নেতাকর্মীরা সক্রিয়

বরিশালে কারেন্ট জাল ও মাছ সহ আটক ৫

গাঁজাসহ দেবর ভাবি আটক

ঝালকাঠিতে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় চেয়ারম্যান প্রার্থীকে শোকজ

মাধ্যমিক শনিবার, রোববার খুলছে প্রাথমিক বিদ্যালয়

জামিনে মুক্ত মামুনুল হক

এসএসসি পরীক্ষার ফল ১২ মে – SSC Exam Result May 12

পিরোজপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে চাকরি, পদ ৯০

বরিশালের গৌরনদীতে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ইউপি চেয়ারম্যানসহ আহত ৪

নগরীর মসজিদ থেকে তাবলিগ জামাতের মাংস চুরি

পু‌লি‌শে চাকরির লোভ দেখিয়ে প্রতারণা, অবশেষে

পায়রা পয়েন্টে প্রধান নির্বাচনী অফিসের উদ্বোধন

বরিশালে সর্বজনীন পেনশন স্কিম নিয়ে সভা

সংবাদ সংগ্রহে যাওয়া সাংবাদিকদের ওপর হামলা, ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার

বরিশালে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে রাজমিস্ত্রির মৃত্যু

পুত্রবধূর সঙ্গে অভিমান করে শাশুড়ির কাণ্ড

কখনো তারা জিন বাবা- কুফরি বাবা, আবার কখনো কালী বাবা

বিয়ে ছাড়াই পরিবারের সিদ্ধান্তে ৩ মাস সংসার, অতঃপর…

মিল্টন সমাদ্দার গ্রেপ্তার, বরিশালে মিষ্টি বিতরণ

প্রধানমন্ত্রী’র পার্সোনাল অফিসার পরিচয়ে অর্থ আত্মসাৎ!

মানবসেবার আড়ালে যেসব ভয়ংকর অপকর্ম চালিয়েছে মিল্টন সমাদ্দার

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স না পেয়ে পদ্মা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে তরুণীর ‘আত্মহত্যা’

মে দিবসের ছুটির দিনেও কর্মব্যস্ত শ্রমজীবীরা

পুলিশ স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রী নির্যাতনের মামলা

স্বস্তির খবর জানালো আবহাওয়া অধিদপ্তর

কথা দিচ্ছি আপনাদের সেবায় আমি সর্বদা পাশে থাকবো : চেয়ারম্যান প্রার্থী এসএম জাকির হোসেন

বরিশালে মে দিবস উপলক্ষে বাস টার্মিনালে খিচুড়ির টাকা উত্তোলন

বরিশাল আ.লীগের কোষাধ্যক্ষ বিরুদ্ধে সাইবার আদালতে মামলা

বিএম কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদকের অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ

বরিশালে ‘দালালবিরোধী’ র‌্যাবের অভিযান, আটক ২৪

বরিশালে মোটরসাইকেল প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর হামলায় আহত-২

বরিশালে তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে স্কুলশিক্ষার্থী হাসপাতালে

পিরোজপুরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বাবার মৃত্যু, মেয়ে হাসপাতালে

উজিরপুরে সর্বজনীন পেনশন স্কীম বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

মা-বাবার ঝগড়া থামাতে অভিযোগ নিয়ে থানায় শিশু

‌‘রাত ১১টার পর রাস্তার পাশের চায়ের দোকান বন্ধ করে দিতে হবে’

যাত্রীবেশে অটোরিকশায় ওঠেন দম্পতি, চালকের গলায় ছুরি বসিয়ে করেন ছিনতাই

টাকা উপার্জনের জন্য আমি নির্বাচনে আসিনি– ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জসিম উদ্দিন 

নির্বাচিত হলে সদর উপজেলার কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করতে চাই : এস এম জাকির হোসেন

বরিশালে ২ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

শহর পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে বসানো হচ্ছে আধুনিক ডাস্টবিন

খা‌সেরহাট বাজারে আগুন, ১৫ প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই

ঢাকার তাপমাত্রা দেখে সারা দেশের বিদ্যালয় বন্ধ করা যুক্তিযুক্ত নয়: শিক্ষামন্ত্রী

আবারো তিন দিনের ‘হিট অ্যালার্ট’ জারি

বরিশালে এক মঞ্চে তিন চেয়ারম্যান প্রার্থী

বরিশালে গরমে আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু

অভিযানের সময় নদীতে ঝাঁপ দিলো জেলে,অতঃপর

বৃষ্টি প্রার্থনায় অঝোরে কাঁদলেন বরিশালের মুসল্লিরা

বরিশালে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যু

নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের প্রশ্নই আসে না: ইসি

তীব্র তাবদাহে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনায় নতুন নির্দেশনা

বরিশালে সহযোগিতা ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরন

বরিশালে দোকানে বিক্রি মাংস বয়কট করে চাঁদা তুলে মাংস বন্টন!

বরিশালে ঈদের কেনাকাটা শেষে বাড়ি ফেরার পথে ওড়না পেঁচিয়ে প্রাণ গেল তরুণীর

বরিশালে কয়েক এলাকায় আগাম ঈদ উদযাপন

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় লঞ্চ,স্পীড বোট ও ট্রলারকে জরিমানা

বরিশালে বাসচাপায় দুলাভাই-শ্যালক নিহত

হিরন ভাইয়ের মতো জনতার জন্য কাজ করতে চাই: জসিম উদ্দিন

ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহনের দায়ে দুই লঞ্চকে জরিমানা

বিসিরির সাবেক মেয়র হিরন এর ১০তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

উজিরপুরে পুকুরে ডুবে দুই বছরের শিশুর মৃত্যু

পিতার বিরুদ্ধে মেয়েকে যৌন হয়রানির অভিযোগ, স্ত্রীকে পতিতাবৃত্তির প্রস্তাব!

সাধারন মানুষ’ই আমার আপনজন: জসিম উদ্দিন

বরিশাল সদর উপজেলার পথে প্রান্তরে ছুটছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী এসএম জাকির

স্বস্তির ঈদযাত্রায় বরিশাল

বরিশালে চলছে শেষ সময়ের কেনাকাটা

ঝালকাঠিতে কৃষকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আবার ব্যর্থ গাজায় যুদ্ধবিরতির আলোচনা

জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন স্বাচিপের

বরিশালে বসবাসরত চিকিৎসক-নার্স-স্টাফদের ছুটি বাতিল

বরিশালে কারেন্ট জাল ও মাছ সহ আটক ১৪

মনপুরায় নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যদের শপথ গ্রহণ

ইন্দুরকানীতে উপজেলা নির্বাচনে গণসংযোগে ব্যস্ত প্রার্থীরা

বরিশাল সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে নতুন পোশাক বিতরণ

তালতলীতে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণ

গলাচিপায় তাল গাছ থেকে পড়ে স্ত্রীর সামনে স্বামীর মৃত্যু

পচা নাড়ার ঘরে বসবাস বৃদ্ধা আয়েশা বিবির

পিরোজপুরে ২৬ ঘণ্টা পর বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক

ভোলার দুই ইউনিয়ন পরিষদের ভোট স্থগিত

রমজানে সুলভ মূল্যে দুধ-ডিম ও মাংস পেল প্রায় ৬ লক্ষ মানুষ

স্বামীকে নিয়ে ওমরাহ পালন স্পর্শিয়ার

ব্রাজিলকে সরাসরি বাংলাদেশি পোশাক কেনার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সাত বিভাগে বৃষ্টি, তাপমাত্রা বাড়া নিয়ে যে বার্তা দিল আবহাওয়া অধিদপ্তর

ঈদ কবে, জানা যাবে কাল

বাঁচতে চায় বিএম কলেজ শিক্ষার্থী তামিম

সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে হামলার শিকার তিন নারী পুলিশ, গ্রেফতার ২

গ্রিন লাইন ওয়াটার বাসে আগুন, অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন ৬০০ যাত্রী

বরিশালে ৩ পুলিশ সদস্যের উপর হামলা, অত:পর…

প্রেমের টানে ঝালকাঠিতে ভারতীয় যুবক, পালালেন প্রেমিকা

পাথরঘাটায় পৌর প্রাণ রক্ষাসহ সুপেয় পানির দাবি

মির্জাগঞ্জে নসিমনের চাপায় পথচারী নিহত

নদীতে মিলছে না ইলিশ, জেলেপল্লীতে নেই ঈদ আনন্দ

ডাকাত সন্দেহে জনতার হাতে আটক মাদক নিয়ন্ত্রণের ১৭ কর্মকর্তা

পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড়ে লন্ডভন্ড শত শত বাড়িঘর, একজনের মৃত্যু

ঝালকাঠিতে বজ্রপাতে দুই নারী ও এক শিশু নিহত

নৌপথে ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন রাখতে নৌপুলিশ বদ্ধ পরিকর: কফিল উদ্দিন

মুরগির খোপে মিলল ছয় ফুট লম্বা অজগর

পিরোজপুরে কালবৈশাখী ঝড়, গাছচাপায় একজনের মৃত্যু

ঈদের আগে বেড়েছে মুরগির দাম

বরিশাল নগরীর ৩০ ওয়ার্ডের ৯০ হাজার গ্রাহক টিসিবির পণ্য কেনা থেকে বঞ্চিত!

আজ পবিত্র শবে কদর

অপরাধী চলে দ্রুত যানে, পুলিশ ধাওয়া করে থ্রি হুইলারে

ঈদ উপলক্ষে ঢাকা-বরিশাল নৌপথে স্পেশাল সার্ভিস

বরিশালে ট্রলি খালে পড়ে চালক নিহত

বরিশালে বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস পরিশোধের দাবিতে শ্রমিকদের কর্মবিরতি

ওমরাহ পালনে সৌদিতে সাকিব

ফেসবুকে ‘ভালো থেকো আব্বু-আম্মু’ পোস্ট দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

নিত্য যানজটে নাকাল বরিশাল মহানগরী

মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায়

মহিপুর মৎস্য বন্দরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, ২৩ আড়ত পুড়ে ছাই

সঠিক পুরুষ পেলেই বিয়ে করবেন সুস্মিতা

ঈদে ৬ দিন ছুটি পেলেন গণমাধ্যমকর্মীরা

ভোলায় অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করায় জরিমানা দুই লঞ্চকে জরিমানা

দুমকিতে যুবকের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার

গলাচিপায় বাড়ছে ডায়রিয়ার প্রকোপ

সোমবার সন্ধ্যায় ঈদের চাঁদ দেখার আহ্বান সৌদি আরবের

বরিশালে আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দারা পেল প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার

পিরোজপুরের অলিম্পিয়াডের বাছাই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

যৌনকর্মীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ প্রেমিকের বিরুদ্ধে

ভোলায় জাল টাকা সহ ১ জনকে আটক করল র‍্যাব

পিরোজপুরে সুলভমূল্যে সবজি বিক্রি

শবে কদর রজনিতে দেশ ও মুসলিম জাহানের কল্যাণ কামনা প্রধানমন্ত্রীর

বরিশালে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তার বাসায় দুর্ধর্ষ চুরি

আমতলীতে ডায়েরীয়ার প্রকোপ: স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৬ জনের বেডে ৩০ জনের চিকিৎসা!

ঝালকাঠিতে মাদ্রাসাছাত্রকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ

ঈদের পরেই বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কমিটি

লঞ্চে শুরু হয়েছে নাড়ির টানে বাড়ি ফেরা

গাজায় সাহায্য পৌঁছাতে গিয়ে ইসরায়েলের হাতে নিহত ত্রাণকর্মী

বরিশালে ঈদ উপলক্ষে নিরাপত্তার চাঁদরে ঘেরা থাকবে নৌপথ: কফিল উদ্দিন

ঢাকা-গলাচিপা নৌ-রুটে ১ বছর পর লঞ্চ চলাচল শুরু

ধারের টাকা না দেওয়ায় অঞ্জনাকে লিগ্যাল নোটিশ ডিপজলের

ইফতারে ডাবের পানি কেন জরুরি?

প্রতিশ্রুতি নয়, বাস্তবে কাজ করে দেখাবো : এসএম জাকির হোসেন

বরিশালে পুলিশের নাম ভাঙিয়ে যানবাহনে ‘বিট বাণিজ্য’

বরিশালে পহেলা বৈশাখ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

অর্থাভাবে বরিশাল-ভোলা সেতু নির্মাণে বিলম্ব

পরকীয়ার কথা স্বামী জেনে যাওয়ায় বিদ্যুতের খুঁটিতে উঠলেন স্ত্রী!

ঈদে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে যাত্রা হবে নিরাপদ-মো: শাহাবুদ্দিন খান

বরিশালে শতাধিক পরিবার পেল বিএমপি কমিশনারের ঈদ উপহার

বরিশালে গরমের সঙ্গে বাড়ছে লোডশেডিং, নাকাল নগরবাসী

বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের ১১টি স্থান ঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত

বরিশাল শেবাচিমে লোপাট হচ্ছে রোগ পরীক্ষানিরীক্ষা টাকা!

বরিশালে সরকারি খাদ্যগুদামের চাল চুরির ভিডিও ভাইরাল

বরিশালে ধর্ষণচেষ্টা মামলায় গৃহশিক্ষক কারাগারে

বরিশালে ভুয়া চিকিৎসকের ফাঁদে নারী চিকিৎসক

মরিচের গুঁড়ায় রং মেশানোয় ২ কারখানা মালিককে জরিমানা

বাকেরগঞ্জের ওসি আফজাল শ্রেষ্ঠ হওয়ার রেকর্ড গড়লেন

সেবা নিশ্চিত করুন, ভবিষ্যতে ভোটের চিন্তা থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী

ঈদযাত্রা নির্বিঘ্নে ড্রোনসহ সবধরণের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে: হাইওয়ে পুলিশ প্রধান

একসঙ্গে তিন ছেলেসন্তানের জন্ম দিলেন গৃহবধূ

নানার বাড়ির পুকুরে ২ ভাইয়ের মৃত্যু

ইফতারে গ্যাস্ট্রিক দূর করবে যেসব খাবার

বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি নিয়ে মুখ খুললেন সাবেক শিক্ষার্থী অপি করিম

গলাচিপায় ঈদ উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা

বরিশালে ঈদ বাজার জমজমাট

মামলার ‘পাচারের শিকার’ নারীর সংবাদ সম্মেলন বাদীর বিরুদ্ধে

কিশোরীকে অপহরণ-পতিতাবৃত্তির উদ্দেশ্যে বিক্রি, গ্রেপ্তার ৩

বরিশালে বাংলা বর্ষবরণ ও মঙ্গল শোভাযাত্রা ঘিরে ব্যস্ত শিল্পীরা

বরিশালসহ চার বিভাগে হিট অ্যালার্ট

ভোলায় সাড়া ফেলেছে উদ্যোক্তা ঈদ পণ্য মেলা

বরিশালে কারেন্ট জাল ও মাছ সহ আটক ১৭

উপজেলা নির্বাচনে আ‘লীগের দুজনকে প্রার্থী ঘোষণা

রাজাপুরে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্মার্ট হবে কৃষক: সংসদ সদস্য জ্যাকব

উজিরপুরে ভুয়া ডিএসবি পুলিশ সেজে প্রতারণার অভিযোগ

উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের অভিযোগে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আটক