১১:৫৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেতাগীতে রাসেল ভাইপার আতঙ্ক

ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতের পরে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে দেখা মিলছে বিষাক্ত ‘রাসেল ভাইপার’ সাপ। গ্রামগঞ্জের মানুষের মধ্যে বিষধর এই সাপ সম্পর্কে একদমই কোনো ধারণা বা পরিচিতি নেই বললেই চলে।

ইতোপূর্বে বরগুনার পাশের জেলা ভোলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের দু’একটি জায়গায় রাসেল ভাইপার প্রজাতির সাপ ধরা পড়লেও তা বনে অবমুক্ত বা পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়। সাধারণ জনগণের মধ্যে এ নিয়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

শুক্রবার দিনভর বেতাগী পৌর শহরের চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সব জায়াগাতে এই বিষধর সাপ নিয়ে আলোচনা চলছে। এর আগে, গত বুধবার বরগুনার আমতলীতে এই সাপের দংশনে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এই সংবাদে বেতাগীর সব জায়গায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

বেতাগী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক আহমেদ বলেন, ‘বর্ষার সময় এই বিষাক্ত রাসেল ভাইপার দেখা মিলতে পারে। তাই সকলকে সাবধানে চলাফেরা করতে হবে।’

তথ্য অনুযায়ী উত্তর এবং উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতেই ওই সাপের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিল। ওই প্রজাতির সাপের সবচেয়ে বেশি উপস্থিতি ছিল রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়। তবে বর্তমানে দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকায় ওই প্রজাতির সাপের উপস্থিতি বেড়ে গেছে।

উত্তরবঙ্গে রাসেল ভাইপার সাপ চন্দ্রবোড়া বা উলুবোড়া নামে পরিচিত। সাপটির গাঁয়ের রং এবং চিত্রাকৃতির হওয়ায় বেশিরভাগ মানুষ ওটিকে নদীতে বাস করা অথবা অজগর সাপের ছদ্মনাম বলেই জানে। বাংলাদেশে যে সকল সাপ দেখা যায় সেগুলোর মধ্যে ওটিই সবচেয়ে বিষাক্ত সাপ।

এ দিকে, সচেতন মহল আশঙ্কা করছেন, আফ্রিকা উপমহাদেশ থেকে আসা ওই বিষধর সাপের উপদ্রব এখনই কমানো না গেলে পরে আরো বিরাট আকার ধারন করবে।

ট্যাগস :

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।