১১:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

২ দিন ধরে ঝালকাঠির বাজারে মুরগি বিক্রি বন্ধ

ঝালকাঠির বাজারে দু’দিন ধরে সবধরনের মুরগি বিক্রি বন্ধ রেখেছে বিক্রেতারা। ব্রয়লার, লেয়ার ও সোনালীসহ কোনো জাতের মুরগিই মিলছে না বাজারে। কৃষি বিপণন অধিদফতরের পক্ষ থেকে মুরগির দাম নির্ধারণ করে দেয়ায় এই সঙ্কট তৈরি হয়েছে বলে দাবি স্থানীয় ব্যবসায়ীদের।এদিকে মুরগির সঙ্কট দূর করতে একটি খামার থেকে মুরগি এনে শহরের চাঁদকাঠি বাজার এলাকায় ম্যাজিস্ট্রেট দাঁড়িয়ে থেকে সরকার নির্ধারিত দামে মুরগি বিক্রি করিয়েছেন। ব্রয়লার ও সোনালীর দুই শ’ মুরগি এ সময় বিক্রি করা হয়। ব্রয়লার ১৭৫ টাকা এবং সোনালী প্রতিকেজি ২৬২ টাকা করে বিক্রি করে এক খামারী। এতে ক্রেতারা কিছুটা স্বস্তি পেলেও অনেকেই মুরগি না পেয়ে ফিরে গেছে।এদিকে মুরগির সঙ্কট দূর করতে একটি খামার থেকে মুরগি এনে শহরের চাঁদকাঠি বাজার এলাকায় ম্যাজিস্ট্রেট দাঁড়িয়ে থেকে সরকার নির্ধারিত দামে মুরগি বিক্রি করিয়েছেন। ব্রয়লার ও সোনালীর দুই শ’ মুরগি এ সময় বিক্রি করা হয়। ব্রয়লার ১৭৫ টাকা এবং সোনালী প্রতিকেজি ২৬২ টাকা করে বিক্রি করে এক খামারী। এতে ক্রেতারা কিছুটা স্বস্তি পেলেও অনেকেই মুরগি না পেয়ে ফিরে গেছে।

বিক্রেতারা জানায়, কৃষি বিপণন অধিদফতরের বেঁধে দেয়া দামের কারণে ব্রয়লার, লেয়ার ও সোনালী মুরগি পাইকারি বিক্রি করছে না খামারের মালিকরা। তাই বাজারের দোকানগুলোতে মুরগি পাওয়া যাচ্ছে না। পাইকারি যে দামে মুরগি কেনা হয়, প্রশাসন তার চেয়েও কম দামে মুরগি বিক্রি করতে নির্দেশ দিয়েছে।

কৃষি বিপণন অধিদফতরের বেঁধে দেয়া দামে মুরগি বিক্রি করলে লোকসান গুণতে হবে বলেও জানায় বিক্রেতারা। তাই আপাতত মুরগি বিক্রি বন্ধ রেখেছে তারা।

মুরগির খামারিরা জানায়, মুরগির খাবার ও ওষুধের দাম বেড়েছে কয়েকগুণ। শ্রমিকের মজুরিও বেড়েছে। তাই কম দামে মুরগি বিক্রি করলে লোকসান গুণতে হবে।

তবে ক্রেতাদের অভিযোগ, অল্প দামে ব্রয়লার মুরগি সকল ক্রেতারই ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে বিক্রেতারা বাজারে মুরগি ওঠাচ্ছে না। এতে বিপাকে পড়েছে অনেকেই। মুরগি কিনতে গিয়ে না পেয়ে খালি হাতে ফিরে যেতে হয়েছে ক্রেতাদের।

তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সরকারের বেঁধে দেয়া দামেই মুরগি বিক্রি করতে হবে। বেশি দামে বিক্রি করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঝালকাঠির কৃষি বিপণন অধিদফতরের মাঠ ও বাজার পরিদর্শক আব্দুল মতিন বলেন, মুরগিসহ ২৯টি কৃষি পণ্যের দাম ভোক্তা পর্যায়ে নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। এর বাইরে বেশি দামে বিক্রি করা হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সোমবার একটি খামার থেকে দুই শ’ মুরগি এনে সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করা হয়েছে।

ট্যাগস :

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।