১২:১৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১০ জন হাসপাতালে

বাউফলে শ্রেণিকক্ষে হঠাৎ অসুস্থ শিক্ষার্থীরা, অতঃপর…

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া হায়াতুন্নেচ্ছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে হঠাৎ করে প্রায় ২০-২২ জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা না করে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছেন। বাড়ি গিয়েও একাধিক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছে।

এদিকে অসুস্থ ১০ জন শিক্ষার্থীকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলো- কবিতা, হাসিবা, শ্রীময়ন্তী, মারিয়া, সেতু, ফারজানা, সামিয়া, মারিয়া, জান্নাত, মাহিয়া। ঘটনার সময় প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষকসহ অনেক শিক্ষকই স্কুলে অনুপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী আফিফা আক্তার নূহা শ্রেণিকক্ষে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। এর পরপরই একই শ্রেণির অনিমা, ফাতেমা, মারিয়া, হাসিবা, পায়েল, শ্রীময়ন্তী, মরিয়ম, আজমিন এবং নবম শ্রেণির লিয়া ও লামিয়া অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ সময় স্কুলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এবং শিক্ষার্থীরা যে যার মতো করে রিকশা-অটোতে বাড়ি ফিরে যায়।

বাড়ি ফেরার সময় রাস্তায় শিক্ষার্থীদের কান্নাকাটি দেখে অভিভাবকরা স্কুলে ছুটে যান। এ সময় দেখা যায় একাধিক শিক্ষার্থী মাঠে গড়াগড়ি করে কান্নাকাটি করছে। সহপাঠীরা মাথায় পানি দিচ্ছে। কেউ বাড়ি ফেরার জন্য রিকশা খুঁজছে।

অসুস্থ শিক্ষার্থীরা জানায়, সপ্তম শ্রেণির কক্ষে প্রথমে উৎকট গন্ধ পাওয়া যায়। এরপরই তাদের মাথা ঘুরছিল, বমিবমি ভাব হচ্ছিল। এরপরই তারা অসুস্থ হয়ে পড়ে। বেলা ২টার দিকেও স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনো চিকিৎসককে খবর দিয়ে স্কুলে আনেননি।

এ সময় স্থানীয় সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. বশির গাজী খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসক পাঠান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষিকা জানান, বিষয়টি প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষককে জানালে তারা অসুস্থ শিক্ষার্থীদের বাড়ি পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিকাল ৩টার দিকে বাড়ি ফেরা ১০ জন শিক্ষার্থীকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অপর একটি সূত্র জানায়, ঘটনার দিন শিক্ষার্থীদের মাঠে নামিয়ে বৃষ্টিতে ভিজিয়ে প্রত্যাহিক সমাবেশ করানো হয়েছিল।

বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে আসা ডা. সাইফুর রহমান জানান, এক শিক্ষার্থী অ্যালার্জিজনিত বা অন্য কোনো কারণে অসুস্থ হয়ে পড়লে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভীতি ছড়িয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।