০৯:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পটুয়াখালী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও ইউজিসি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) উপাচার্য স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) চেয়ারম্যান  প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় আরও অভিযুক্ত করা হয়েছে- পবিপ্রবির অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক সন্তোষ কুমার বসু এবং কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহাম্মদ আলীকে।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) পটুয়াখালীর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলাটি করেন ইসরাত জাহান নামে এক নারী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাদীপক্ষের আইনজীবী হুমায়ুন কবির বাদশা বলেন, ‘‘বাদী (ভুক্তভোগী) ২৭ ফেব্রুয়ারি আদালতে মামলা করেন। বিজ্ঞ আদালত এ বিষয়ে সমন নোটিশ জারি করেছেন।’’

এ বিষয়ে পবিপ্রবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক সন্তোষ কুমার বসু বলেন, ‘‘মামলা হয়েছে কি-না বলতে পারব না, এখনো কোনো কাগজপত্র পাইনি।’’

ভিসি অধ্যাপক স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত বলেন, ‘‘শুনেছি মামলা হয়েছে, তবে এখনো কোনো কাগজ পাইনি। মামলা হলে অবশ্যই অফিশিয়ালি ফেস (মোকাবিলা) করব।’’

মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের ৩১ অক্টোবর সেকশন অফিসার পদে একজন ও ২০২২ সালের ১৬ নভেম্বর তিনজনসহ অন্যান্য পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের দপ্তর।

সেকশন অফিসার পদের জন্য ঢাকার বাসিন্দা ইসরাত জাহান অনি (মামলার বাদী) আবেদন করেন। ২০২৩ সালের ২ নভেম্বর বাদীকে সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকা হলে তিনি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে সাক্ষাৎকার দেন এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষক-কর্মকর্তা পদে বাছাইয়ের জন্য একাধিক কমিটি গঠন করে। যা বিধিবহির্ভূত বলে বিবরণে উল্লেখ করা হয়।

বিবরণে আরও বলা হয়, সেকশন অফিসারসহ বিভিন্ন পদে নিয়োগ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট এলাকায় ব্যাপক অনিয়ম ও টাকা লেনদেনের গুঞ্জন রয়েছে। এ প্রক্রিয়ার কারণে মামলার বাদী ইসরাত জাহান অনি উপযুক্ত প্রার্থী হয়েও নিয়োগ বঞ্চিত হয়েছেন। এজাহারে সেকশন অফিসারসহ অন্যান্য পদের নিয়োগ বাতিল করে পুনরায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার আবেদন জানানো হয়।

ট্যাগস :

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।