১১:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মন্ত্রী-মেয়রের বৈঠকে কী বরিশালের উন্নয়নে!

বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম এবং সিটি করপোরেশন মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত এক টেবিলে বসেছেন। খুবই স্বাভাবিক একটা ঘটনা। কিন্তু এই বসা নিয়েই বরিশালে যত আলোচনা।

রোববার (১৯ মে) রাতে দুই জনপ্রতিনিধির ফেসবুক আইডিতেই রাতে তাদের বৈঠক নিয়ে বেশ কিছু ছবি আপলোড করা হয়েছে।


এতে বাহবাও পাচ্ছেন তারা। তবে কেউ কেউ নানা প্রশ্নও ছুড়েছেন। বেশ কয়েক মাস ধরে তাদের দুজনের মধ্যে সম্পর্কের অবনতির খবর ছড়িয়ে পড়ছিল। তবে কি সেই খবরকে মাটি দিতেই ঘটা করে এই বসা? তেমনটিই ধারনা করছেন স্থানীয়রা।


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, বরিশাল সিটি করপোরেশন ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় দুজনের মিলমিশ থাকলেও হঠাৎ করে দুজন আলাদা হয়ে যান। পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী শুরুর দিকে বরিশালে গেলেই একে অপরের সঙ্গে দেখা করতেন। কিন্তু হঠাৎ তাও বন্ধ হয়ে যায়। দুজনের ঘনিষ্ঠ লোকজনের মাঝেও বিচ্ছেদ দেখা যায়।
তবে রোববার রাতে দুজনের এক টেবিলে বসায় স্থানীয় রাজনীতি নতুন মোড় নিয়েছে। পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীমকে বরিশালের সিটি মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহর ধানমণ্ডিস্থ বাসভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও মতবিনিময় করতে দেখা যায়। এতে উভয় গ্রুপের মাঝে উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়ে। কর্মীদের মত স্থানীয় রাজনীতিতে শক্ত অবস্থান হবে উভয়ের।

এ বিষয়ে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম ও সিটি মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহর কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে বৈঠকে অংশ নেয়া বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আফজালুল করিম বলেন, ‘মন্ত্রী ও মেয়রের মাঝে কোনও দিন বৈরি সম্পর্ক ছিল না। এ সব মিথ্যা অপবাদ। ঢাকায় মন্ত্রী ও মেয়র একসঙ্গে বসেছে; কারণ তাদের বরিশালবাসীর কাছে কমিটমেন্ট ছিল- তারা দুজন মিলে উন্নয়ন করবে। সেই অনুযায়ী কী কী উন্নয়ন করা যায় সেসব বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। বরিশালবাসীকে তারা দুজনে উন্নয়নের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, আশা করছি দ্রুত তা বাস্তবায়ন হবে। তাদের মধ্যে কোনও ভেদাভেদ নেই।’
ট্যাগস :

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।