০১:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমতলীতে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু, ক্লিনিক বন্ধের নির্দেশ

আমতলীর একেস্কুল সংলগ্ন ইউনিক স্পেশালাইজড হসপিটাল নামের একটি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় আলাউদ্দিন মুছল্লী (৬৫) নামে এক রোগীর মৃত্যুর পর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা হাসপাতালটি সাময়িক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। শুক্রবার রাতে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এঘটনায় এলাকায় তোলপার সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর তক্তাবুনিয়া গ্রামের মফেজ মুছল্লীর ছেলে মো. আলাউদ্দিন মুছল্লী (৬৫) হারনিয়ার সমস্যা নিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় আমতলীর একেস্কুল সংলগ্ন ইউনিক স্পেশালাইজড হসপিটাল নামে একটি ক্লিনিকে ভর্তি হন। ওই ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে অপারেশন করতে ২৫ হাজার টাকায় চুক্তি হয়। চুক্তি মোতাবেক সমুদয় টাকা পরিশোধ করে রোগীর ছেলে লিমন মুসুল্লী। শুক্রবার রাত ৮টার সময় অপারেশন করেন ডা. মাহবুবুর রহমান কচি নামের এক চিকিৎসক।

অপারেশনের দুই ঘন্টা পর রোগী আলাউদ্দিন মুছল্লী গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে ওই কিলনিকেই মারা যান। কিন্তু ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ রোগী মারা যাওয়ার বিষয়টি বুঝতে দেয়নি তার স্বজনদেরকে।

পরে রাত ১২ টার দিকে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ উন্নত চিকিৎসার কথা বলে ঘটনা ধামাচাপা দিতে মৃত্যু আলাউদ্দিনসহ তার স্বজনদের এ্যাম্বুলেন্সে যোগে উন্নত চিকিৎসার কথা বলে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। ওই হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে খবর দিয়ে লাশ তাদের হাতে তুলে দেন। পুলিশ শনিবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে প্রেরন করেন। ঘটনার সত্যতা পেয়ে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. চিন্ময় হাওলাদার শনিবার দুপুরে ক্লিনিক পরিদর্শন করে কার্যক্রম সাময়িক বন্ধ করে দিয়েছেন।

এদিকে এ ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে ইউনিক স্পেশালাইজড হাসপাতাল নামের ক্লিনিকটির পরিচালক রকিব চৌধুরী রাজু উঠেপড়ে লেগেছেন।

আলাউদ্দিন মুছল্লীর স্ত্রী কহিনুর বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, এম্বুলেন্সে উঠানোর সময় দেখি আমার স্বামীর শ্বাস নাই। মোরা অসহায়। অরা অপারেশনের নামে মোর স্বামীরে মাইর‌্যা হালাইছে। আমি এই ঘটনার বিচার চাই।

শনিবার সকালে ইউনিক স্পেশালাইজড হাসপাতাল নামের ক্লিনিকটি সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, ক্লিনিকটি সাইনবোর্ড এবং নাম সর্বস্ব একটি প্রতিষ্ঠান। এখানে ভালো কোন চিকিৎসক নেই। যখন রোগী আসে তখন ফোন দিয়ে চিকিৎসক আনা হয়। এখানে সিজারসহ নানা ধরনের অপাশেরন এবং রোগী ভর্তি করে চিকিৎসা দিয়ে থাকলেও সার্বক্ষনিক কোন চিকিৎসক নেই।

ইউনিক স্পেসালাইজড হাসপাতাল ও ক্লিনিকের চেয়ারম্যান রাকিব চৌধুরী রাজু চিকিৎসা অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, অপারেশনের পর রোগী বেশী অসুস্থ হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালীতে পাঠানো হয়। নিয়ে যাওয়ার সময় পথে আলাউদ্দিন মুছল্লীর মৃত্যু হয়েছে।

অপারেশন করা চিকিৎসক ডা. মাহবুবুর রহমান কচি বলেন, অপারেশন করার পর রোগী সুস্থ ছিল। কেন মারা গেছে এটা আমি জানি না।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকতা ডা. চিন্ময় হাওলাদার জানান, ঘটনা শুনে শনিবার দুপুরে ইউনিক স্পেশালাইজড হাসপাতাল নামের ক্লিনিকটি পরিদর্শন করেছি। তাদের লাইসেন্সসহ সকল কাজপত্র দেখতে চেয়েছি কিন্ত তারা কোন কাগজ পত্র দেখাতে পারেনি। এজন্য ক্লিনিকটি সাময়িক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছি। নির্দেশের পরও যদি তারা ক্লিনিক খোলা রাখে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগস :

Add

আপলোডকারীর তথ্য

Barisal Sangbad

বরিশাল সংবাদের বার্তা কক্ষে আপনাকে স্বাগতম।